১৬ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১লা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

রাবিতে সাংবাদিকদের মানববন্ধন-সমাবেশ

রাবি প্রতিনিধি
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বশেমুরবিপ্রবি) কর্মরত সাংবাদিক ফাতেমা তুজ জিনিয়াকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িক বহিষ্কার ও হয়রানির ঘটনায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে আয়োজিত মানববন্ধন থেকে কর্মরত সাংবাদিকরা বশেমুরবিপ্রবি প্রশাসনকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়াসহ পাঁচ দফা দাবি জানিয়েছে।

দাবিগুলো হলো- সাংবাদিক শামস জেবিনসহ অন্য সংবাদিকদের ওপর হামলা ও হয়রানির বিচার করা, বশেমুরবিপ্রবির ঘটনায় জড়িত প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিদের শাস্তি নিশ্চিত করা, ক্যাম্পাসগুলোতে স্বাধীন সাংবাদিকতার পরিবেশ নিশ্চিত করা ও সারাদেশের ক্যাম্পাসগুলোতে সাংবাদিকের পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করা। মানববন্ধনে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ বলেন, ‘বশেমুরবিপ্রবির উপাচার্য বর্তমানে যা করেছেন তা দেশের সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের জন্য কলঙ্ক। তিনি এই কলঙ্কের জনক বলে মনে করছি। তিনি বর্তমানে আওয়ামী লীগের নাম ব্যবহার করে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য পদে আছে। উপাচার্য হওয়ার পূর্বে যখন শিক্ষক ছিলেন তখন তিনি আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন না।

তারা আরো বলেন, আজ বিশ^বিদ্যালয়গুলো আদর্শিক জায়গায় নেই বলে কথায় কথায় শিক্ষার্থী বহিষ্কারের ঘটনা ঘটছে। বিশ^বিদ্যালয়ে যেসকল ‘প্রভুরা’ বসে থাকেন তাদের ভাবমূর্তিই হচ্ছে শিক্ষার্থীদের উপর স্টিমরোলার চালানো। আর দূর্নীতির বিরুদ্ধে কথা বলতে গেলেই তাদের এই তথাকথিত ‘ভাবমূতির্’ ক্ষুণ্ন হয়ে যায়।

রাবি রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক আহমেদ ফরিদের সঞ্চালনায় মানবন্ধনে বক্তব্য দেন রিপোর্টাস ইউনিটির সভাপতি মর্তুজা নুর, রিপোর্টার্স ইউনিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক আলী ইউনুস হৃদয়, বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সভাপতি সুজন আলী, সহ-সভাপতি মঈন উদ্দিন, রাবি প্রেসক্লাবের সভাপতি মানিক রাইহান বাপ্পী এবং সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম জয়সহ গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শতাধিক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন। মানববন্ধন থেকে সাংবাদিকরা বশেমুরবিপ্রবি‘র উপাচার্যের পদত্যাগ দাবি করেন।

বশেমুরবিপ্রবির আইন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ওই শিক্ষার্থী ‘একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান কাজ কী হওয়া উচিত’ শিরোনামে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাসে দেয়। এই স্ট্যাটাসের প্রেক্ষিতে তাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়।#

(Visited 1 times, 1 visits today)

আরও পড়ুন

বেসরকারি চাকরিজীবীদের বোবা কান্না
মহান জাতীয় শহীদ দিবস শাহাদাতে কারবালা দিবসে ফেনীতে র‍্যালী
মুসলিম মিল্লাতের মহান জাতীয় শহীদ দিবস উপলক্ষে ওয়ার্ল্ড সুন্নী মুভমেন্টের সমাবেশ
মহররম ঈমানী শোক ও ঈমানী শপথের মাস, আনন্দ উদযাপনের নয় – আল্লামা ইমাম হায়াত
করোনায় সারাদেশে আরও ৭ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৯৯৮
বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হওয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
পেপসির সঙ্গে বিষ খাইয়ে খুন, যুবকের যাবজ্জীবন
চাল আমদানির সুযোগ পাচ্ছে ১২৫ প্রতিষ্ঠান