২৮শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৪ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

রাবির স্বাভাবিক পরিবেশ ব্যহত করছে অপরিকল্পিত দোকানপাট

রাবি প্রতিনিধি:
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে গড়ে উঠেছে ভাসমান দোকানপাট। অপরিকল্পিত ভাবে গড়ে ওঠা এই দোকানগুলোর কারণে ক্যাম্পাসের স্বাভাবিক সৌন্দর্যের হানি ঘটছে বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের একাধিক শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। ভাসমান দোকানগুলো অপসারণ করে পরিকল্পিত ভাবে সৌন্দর্য রক্ষা করা যাবে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

সরেজমিনে দেখা গেছে- ক্যাম্পাসের টুকিটাকি চত্বর, পরিবহন মার্কেট, পুরাতন ফোকলোর চত্বর, বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসস্ট্যান্ড, শহীদুল্লাহ্ কলাভবনের সামনে, ডিনস্ কমপ্লেক্সের উত্তর ও দক্ষিণ পাশে, রবীন্দ্র ভবনের পর্ব ও দক্ষিণ গেটের সম্মুখে, মমতাজ উদ্দিন কলাভবনের দক্ষিণ গেটের সামনে, বিজ্ঞান ভবনগুলোর সামনে, চারুকলা গেইট ও এর আশেপাশে, বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টেশন বাজার এবং ১৭টি আবাসিক হলের সামনে যত্রতত্র ভাবে গড়ে উঠেছে এসব দোকানপাট। বিভিন্ন সময় প্রশাসন থেকে এসব দেকান অপসারণের জন্য পদক্ষেপ নিলেও এখন পর্যন্ত তা পূর্বের ন্যায় রয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ফোকলোর বিভাগের শিক্ষার্থী ইসরাত জাহান ইমু বলেন, আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস দেশের অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস থেকে এমনিতেই অনেক সুন্দর ও গোছালো। কিন্তু এসব অপরিকল্পিত দোকানগুলোর কারণে ক্যাম্পাসের সৌন্দর্যহানি ঘটছে।
অপরিকল্পিত এসব দোকানপাট অপসারণে প্রশাসনের শক্ত পদক্ষেপ প্রয়োজন বলে মনে করেন অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থী ইমতিয়াজ হোসেন। তিনি বলেন, ক্যাম্পাস থেকে এসব দোকানপাট উচ্ছেদ করে তার স্থানে পরিকল্পিত দোকান গড়ে তোলে তাহলে ক্যাম্পাসটা দেখতে আরো ভাল লাগবে। আর এ জন্য প্রশাসনের অবস্থান আরও শক্ত হওয়া উচিৎ।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, ‘ক্যাম্পাসের ভাসমান দোকানগুলো তুলে দেয়ার জন্য প্রশাসন পদক্ষেপ নিয়েছে। এর আগে বেশ কিছু দোকান তুলে দিয়েছি। উপ-উপাচার্য চৌধুরি মো. জাকারিয়ার নেতৃত্বে ক্যাম্পাসে সৌন্দর্য বর্ধণের কাজ চলছে। কিছু দিনের মধ্যে এসব ভাসমান দোকানপাট অপসারণ করে ক্যাম্পাসের স্বাভাবিক পরিবেশ ফিরিয়ে আনা হবে।

জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরি মো. জাকারিয়া বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫০ বছরের মাস্টার প্ল্যান অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়ের সৌন্দর্যবর্ধণের কাজ চলছে। এরই ধারাবাহিকতায় ক্যাম্পাসে গড়ে ওঠা এসব ভাসমান দোকানগুলো তুলে দিয়ে পরিকল্পিতভাবে দোকানপাট তৈরি করা হবে। এতে করে ক্যাম্পাসের সৌন্দর্য বৃদ্ধির পাশাপাশি নান্দনীকতাও বৃদ্ধি পাবে।

(Visited 1 times, 1 visits today)

আরও পড়ুন

বাড়ছে করোনা আসছে কঠোর নির্দেশনা!
মাত্র কয়েক ঘণ্টা পর সাধারণের জন্য উন্মুক্ত হবে পদ্মা সেতু
পদ্মা সেতু সাঁতরে মঞ্চে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলল কিশোরী
মাদারীপুর শিবচরের জনসভায় প্রধানমন্ত্রী
টোল দিয়ে পদ্মা সেতু পার হলেন প্রধানমন্ত্রী
২ পরিবর্তন নিয়ে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ
‘পদ্মা সেতু’দেশপ্রেমিক জনগণের আস্থা ও সমর্থনের ফলেই আজকে উন্নয়ন : প্রধানমন্ত্রী
রাত পোহালেই স্বপ্নের মাহেন্দ্রক্ষণ