২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৮ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ |

চন্দনাইশের নির্ভীক করোনা যোদ্ধা রবিউল-ছোটন

গত দুই মাস ধরে করোনা সন্দেহভাজন ব্যক্তিদের শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করেন চন্দনাইশ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল টেকনোলজিস্ট (ইপিআই) মো. আকতারুজ্জামান রবিউল ও মেডিকেল টেকনোলজিস্ট (ল্যাব) ছোটন কুমার পাল। ভয়কে জয় করে গত ২ এপ্রিল থেকে আজ পর্যন্ত তারা নমুনা সংগ্রহ করে চলেছেন।

এ পর্যন্ত তারা উপজেলার ৪ শতাধিক ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহ করেছেন। তাদের মধ্যে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৫৪ জনের।
করোনা জয়ে প্রথম সারির যোদ্ধা হিসেবে ইতিমধ্যে তারা সকল শ্রেণী-পেশার মানুষের প্রশংসা পাচ্ছেন।
টানা সময় ধরে সন্দেহভাজন ব্যক্তিদের নমুনা সংগ্রহ করে চললেও তারা এখনও পর্যন্ত সম্পূর্ণ সুস্থ আছেন।

চন্দনাইশ পৌরসদরের মুক্তিযোদ্ধা মরহুম আসহাব মিয়ার একমাত্র ছেলে মো. আকতারুজ্জামান রবিউল ও হাশিমপুর ইউনিয়নের হাশিমপুর পালপাড়ার যুগল কিশোর পালের ছেলে ছোটন কুমার পাল জানান, দেশে করোনার প্রকোপ শুরু হওয়ার পর থেকে তাদের ওপর সরকারি অর্পিত দায়িত্ব নির্ভয়ে পালন করে যাচ্ছেন।

ইতিমধ্যে আকতারুজ্জামান রবিউল তার ২ মেয়েকে নানার বাড়ি রেখে এসেছেন। মাঝে-মধ্যে বাড়িতে গেলেও নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রেখে চলাফেরা করেন এবং বৃদ্ধ মায়ের দোয়া নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়ে আসেন।
ছোটন কুমার পাল গত ২ মাস ধরে তার বাড়িই যাননি। ফোনে মা-বাবার সাথে কথা হলেও ২ মাসের মধ্যে তাদের চেহারা পর্যন্ত দেখেননি। যতদিন তারা সুস্থ থাকবেন নির্ভয়ে নমুনা সংগ্রহ করার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্তি করেন। মানুষের সেবায় নিজেদের নিয়োজিত রাখতে চান কারণ মানবসেবাই হলো আসল ধর্ম।

নমুনা সংগ্রহের অভিজ্ঞতা থেকে তারা বলেন, দায়িত্ব পালনের পর থেকে একটিবারের জন্যও নমুনা সংগ্রহ থেকে পিছু হটেননি। নির্দিষ্ট সময়ের বাইরেও প্রতিদিন দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন তারা।

তারা বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনা অনুসারে, সন্দেহভাজন করোনা রোগীদের নমুনা সংগ্রহ বা চিকিৎসা সেবায় টানা ৭ দিন নিয়োজিত থাকলে কর্মরতদের ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে যেতে হয়। তাদের সুস্থতা সাপেক্ষে এবং নমুনা সংগ্রহের বিকল্প না থাকায় টানা ২ মাসেরও বেশি সময় ধরে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন তারা। এ কাজের জন্য তারা তাদের পরিবারের সদস্যদের অকুন্ঠ সমর্থন পেয়েছেন। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার প্রতি কৃতজ্ঞতাও প্রকাশ করেন তারা।

তবে মাঝে মাঝে তাদের পরিবারের সদস্যরা কোনো সাংসারিক কাজে বের হলে এলাকার একশ্রেণীর মানুষ বাঁকা চোখে দেখেন। অনেক কাজে প্রতিবন্ধকতাও সৃষ্টি করেন।
কিছুদিন পূর্বে রবিউলের গৃহকর্মী পার্শ্ববর্তী পুকুরে গেলে করোনা ছড়ানোর ভয়ে বাধার মুখে পুকুরে নামতে পারেননি। দোকানে পণ্য কিনতে গেলে জিনিসপত্রও ছুড়ে দেন দোকানদাররা। এ বিষয়গুলো তাদের ভীষণ কষ্ট দেয় বলেও জানান রবিউল।

চট্টগ্রাম-১৪ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মো. নজরুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, “মানুষের মনে মানবিকতা থাকলে যেকোনো কাজ নির্ভয়ে করা যায়। যার প্রমাণ চন্দনাইশ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনা সন্দেহভাজন ব্যক্তিদের থেকে নির্ভয়ে নমুনা সংগ্রহকারী আকতারুজ্জামান রবিউল ও ছোটন কুমার পাল। সমস্ত ভয়কে জয় করে, পরিবার পরিজনকে ছেড়ে এসে সমস্ত দ্বিধা কাটিয়ে তারা নমুনা সংগ্রহ করে যাচ্ছেন যা সত্যিই সাহসিকতার বহিঃপ্রকাশ ও প্রশংসার দাবিদার। উৎসাহমূলক কাজের জন্য আমি তাদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি এবং মহান সৃষ্টিকর্তার কাছে তাদের সুস্থতা কামনা করছি।” আর সামাজিকভাবে তারা যাতে বাধার মধ্যে না পড়েন এলাকাবাসীকে সেদিকেও লক্ষ্য রাখার আহ্বান জানান তিনি।
করোনা আক্রান্ত হয়ে আইসোলেশনে থেকে নিজের দাপ্তরিক কার্য সম্পাদনকারী চন্দনাইশ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. শাহিন হাসান চৌধুরী বলেন, “মেডিকেল টেকনোলজিস্ট (ইপিআই) মো. আকতারুজ্জামান রবিউল ও মেডিকেল টেকনোলজিস্ট (ল্যাব) ছোটন কুমার পাল হাসপাতালে যখন থেকেই নমুনা সংগ্রহ করার ব্যবস্থা হয়েছে তখন থেকেই করোনার বিরুদ্ধে সাহসী যোদ্ধা হিসেবে অবতীর্ণ হয়েছেন। ফলে করোনা যুদ্ধের প্রথম সারির যোদ্ধা হিসাবে তারা এলাকার জনপ্রতিনিধিসহ সকল শ্রেণী-পেশার মানুষের প্রশংসাও পাচ্ছেন।”

(Visited ২৭ times, ১ visits today)

আরও পড়ুন

হযরত খাজাবাবা (রঃ) ও জামে আওলিয়া কেরামের পথ পূণরুদ্ধার সম্মেলন অনুষ্ঠিত
বীর মুক্তিযুদ্ধা আব্দুল আলিম এর সহধর্মীনি নুরজাহান বেগম আর নেই
ফজলে রাব্বীর আসনে নৌকার হাল ধরতে চান যারা
মহান জাতীয় শহীদ দিবস শাহাদাতে কারবালা দিবসে ফেনীতে র‍্যালী
মুসলিম মিল্লাতের মহান জাতীয় শহীদ দিবস উপলক্ষে ওয়ার্ল্ড সুন্নী মুভমেন্টের সমাবেশ
মহররম ঈমানী শোক ও ঈমানী শপথের মাস, আনন্দ উদযাপনের নয় – আল্লামা ইমাম হায়াত
এমপির বিরুদ্ধে উপজেলা চেয়ারম্যানকে কিল-ঘুষির অভিযোগ
বঙ্গবন্ধুর সমাধীস্থলে মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের শ্রদ্ধাঞ্জলী