২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৮ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ |

মানবিক চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম হিরন

নোয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জ থানাধীন ১২নং কুতুব পুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জনাব জাহাঙ্গীর আলম হিরন। তার রয়েছে বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর সৈনিক হিসেবে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের রাজনীতি দিয়ে তার রাজনীতির হাতেখড়ি।এই দীর্ঘ পথচলায় তিনি ৯ বছর ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন, তারপর গত প্রায় ১৮ বছর ধরে আজ অবধি অত্যন্ত দক্ষতার সাথে অত্র ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করে চলেছেন। তিনি সর্বসাধারনের কাছে একজন পছন্দের মানুষ। গত ২০১৬ সালের ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে জেলার একমাত্র সতন্র প্রার্থী যিনি শত প্রতিকুলতার মধ্যে ও নিজের ক্লিন ইমেজ এবং এলাকার জনগণের ভালোবাসায় বিপুল ভোটের ব্যবধানে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। নির্বাচিত হয়েই তিনি মাননীয় সংসদ সদস্য জনাব মামুনুর রশীদ কিরন এবং রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গের সহযোগিতায় এলাকার উন্নয়নে আত্মনিয়োগ করেন। ইতোমধ্যে অএ ইউনিয়ন প্রায় শতভাগ বিদ্যুতের আওতায় এসেছে।
জন সাধারণের যাতায়াতের জন্য অতি গুরুত্বপূর্ণ জমিদার হাট থেকে কাজির হাট এবং সেতুভাঙা থেকে বেরার পুল দীর্ঘদিন ধরে অবহেলিত ছিল। হিরন চেয়ারম্যানের একান্ত সহযোগিতায় সড়ক দুটি নির্মান করা হয়।
আব্দুল্লাহপুর আইয়ুব আলীর ডাক্তার সাহেবের বাড়ির সামনের রাস্তা, সাবেক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতির বাড়ি থেকে উত্তর আব্দুল্লাহপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কুতুব পুর পান বেপারী বাড়ি হতে রহমতের বাড়ি হয়ে আবুর দোকান পর্যন্ত পাকা রাস্তার কাজ চলমান।

অএ ইউনিয়নের একমাত্র সরকারী স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র আবদুল্যাহপুর স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র দীর্ঘদিন ধরে অবহেলিত ছিল। হিরন চেয়ারম্যানের অনুরোধে মাননীয় এম পি মহোদয়ের আন্তরিক সহযোগিতায় উক্ত স্বাস্থ্য কেন্দ্রের নতুন ভবন এবং অবকাঠামোগত উন্নয়নের জন্য বরাদ্ধ দেয়া হয়েছে। শীঘ্রই নতুন দ্বিতল ভবনের কাজ শুরু হতে যাচ্ছে। এতে অত্র এলাকার মানুষের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত হবে বিশেষ করে গর্ভবতী মায়েদের ডেলিভারির জন্য দুরের হাসপাতালে কষ্ট করে যেতে হবে না এখানেই সে ব্যবস্থা রাখা হবে।

এছাড়া তিনি সোলার, ষ্ট্রীট লাইট স্থাপনসহ অসংখ্য মসজিদ, মাদ্রাসার উন্নয়নে ভ’মিকা রেখে চলেছেন। দেশের অন্যান্য জায়গার মত অত্র ইউনিয়নেও মাদক একটি সামাজিক সমস্যায় পরিণত হয়েছে, তবে আশার কথা হচ্ছে তিনি নির্বাচিত হওয়ার পর প্রশাসনের সহায়তায় এই সমস্যা অনেকটা নিয়ন্ত্রনে নিয়ে এসেছেন, তবে তিনি প্রত্যেক অভিভাবককে অনুরোধ করেছেন যেন তাদের সন্তানের প্রতি খেয়াল রাখেন কোন ভাবেই কারো সন্তান যেন মাদকাসক্ত হয়ে না পড়ে। প্রয়োজনে ইউনিয়ন পরিষদের সহযোগীতা নেয়ার অনুরোধ করেছেন।

দেশে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়ার পর থেকে তিনি নিজ উদ্যোগে এলাকার মানুষকে সচেতন করার লক্ষ্যে মাইকিং করা, স্বাস্থ্য উপকরণ বিতরণসহ জনসাধারনের কষ্ট লাঘবে দিন রাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। ত্রান বিতরনে স্বচ্চতার লক্ষ্যে উপজেলা চেয়ারম্যান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এবং উপজেলা নির্বাহী কার্যালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদেরকে সাথে নিয়ে সরকারী ত্রান জনসাধারনের মাঝে সুষ্ঠুভাবে বিতরণ করে চলেছেন। প্রচারবিমূখ জনাব জাহাঙ্গীর আলম হিরন চেয়ারম্যানের স্বপ্ন অত্র ইউনিয়নকে একটি মডেল ইউনিয়নে পরিণত করা এবং আমৃত্যু এলাকার জনগনের সেবা করে যাওয়া

(Visited ২৪ times, ১ visits today)

আরও পড়ুন

হযরত খাজাবাবা (রঃ) ও জামে আওলিয়া কেরামের পথ পূণরুদ্ধার সম্মেলন অনুষ্ঠিত
বীর মুক্তিযুদ্ধা আব্দুল আলিম এর সহধর্মীনি নুরজাহান বেগম আর নেই
ফজলে রাব্বীর আসনে নৌকার হাল ধরতে চান যারা
মহান জাতীয় শহীদ দিবস শাহাদাতে কারবালা দিবসে ফেনীতে র‍্যালী
এমপির বিরুদ্ধে উপজেলা চেয়ারম্যানকে কিল-ঘুষির অভিযোগ
বঙ্গবন্ধুর সমাধীস্থলে মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের শ্রদ্ধাঞ্জলী
অসহায় মানুষের মাঝে মাংস বিতরণ করল ‘জীবন আলো’
নোয়াখালীতে প্রবাসীকে মারধর ও লুটপাটের অভিযোগ