২৮শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৪ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

বরগুনায় অপ্রাপ্তবয়স্ক ১১ জনের বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড

বরগুনায় বহুল আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যায় অপ্রাপ্তবয়স্ক রিশানসহ ছয়জনকে ১০ বছর, ৪ জনকে ৫ বছর একজনকে ৩ বছর কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। বাকি ৩ জনকে খালাস দেওয়া হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) জেলা শিশু আদালতের বিচারক হাফিজুর রহমান রায় ঘোষণা করেন।বেলা ১২টা ২৮ মিনিটে পড়া শুরু করেন বিচারক। দুপুর ২টা ৩৫ মিনিটে সাজা ঘোষণা করেন তিনি।

এর আগে ৩০ সেপ্টেম্বর এই মামলার প্রাপ্তবয়স্ক ১০ আসামির রায় হয়। রিফাত হত্যা মামলায় তার স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা ওরফে মিন্নিসহ ছয়জনের ফাঁসির আদেশ দেওয়া হয়। বাকি চার আসামিকে খালাস দেওয়া হয়। ৩০ সেপ্টেম্বর বরগুনার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আছাদুজ্জামান এ রায় ঘোষণা করেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছরের ৮ জানুয়ারি রিফাত হত্যা মামলার অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেন বরগুনার শিশু আদালত। ৭৪ সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ ও উভয় পক্ষের আইনজীবীদের যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের পর ১৪ অক্টোবর বরগুনা শিশু আদালত রায়ের দিন ধার্য করেন। ১৪ আসামির মধ্যে সাত জন ১৬৪ ধারায় আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে।

আসামিরা হলো, রাশিদুল হাসান রিশান ওরফে রিশান ফরাজী (১৭), রাকিবুল হাসান রিফাত হাওলাদার (১৫), আবু আবদুল্লাহ্ ওরফে রায়হান (১৬), ওলিউল্লাহ্ ওরফে অলি (১৬), জয় চন্দ্র সরকার ওরফে চন্দন (১৭), নাইম (১৭), তানভীর হোসেন (১৭), নাজমুল হাসান (১৪), রাকিবুল হাসান নিয়ামত (১৫), সাইয়েদ মারুফ বিল্লাহ ওরফে মহিবুল্লাহ (১৭), মারুফ মল্লিক (১৭), প্রিন্স মোল্লা (১৫), রাতুল শিকদার জয় (১৬), আরিয়ান হোসেন শ্রাবণ (১৬)।

গতবছরের ২৬ জুন বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে শাহনেওয়াজ রিফাতকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করা হয়। বিকেলে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে রিফাত মারা যান। ওই বছর ১ সেপ্টেম্বর ২৪ জনকে অভিযুক্ত করে প্রাপ্ত ও অপ্রাপ্তবয়স্ক দুই ভাগে বিভক্ত করে আদালতে প্রতিবেদন দেয় পুলিশ। এর মধ্যে প্রাপ্তবয়স্ক আসামি ১০ জন এবং অপ্রাপ্তবয়স্ক আসামি ১৪ জন। চলতি বছরের গত ৮ জানুয়ারি রিফাত হত্যা মামলার অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেন বরগুনা জেলা ও দায়রা জজ আদালত। এরপর ১৩ জানুয়ারি থেকে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর রিফাত হত্যা মামলার প্রাপ্তবয়স্ক আসামিদের বিরুদ্ধে রায় ঘোষণা করেন বরগুনা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আছাদুজ্জামান। রায়ে নিহত রিফাতের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিসহ ছয়জনের ফাঁসির আদেশ দেন আদালত। বাকি চারজনকে বেকসুর খালাস প্রদান করা হয়।

ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত আসামীরা হচ্ছেন রাকিবুল হাসান রিফাত ফরাজি, আল কাইউম ওরফে রাব্বি আকন, মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত, রেজওয়ান আলী খান হৃদয় ওরফে টিকটক হৃদয়, মো. হাসান ও আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি।

খালাস প্রাপ্তরা হলেন রাফিউল ইসলাম রাব্বি, মো. মুসা, মো. সাগর, কামরুল ইসলাম সাইমুন। এদের মধ্যে মুসা এখনও পলাতক। এই হত্যাকান্ড সংগঠিত হওয়ার ১৬ মাসের মধ্যে বিচার কার্য সম্পন্ন হবে।

(Visited 1 times, 1 visits today)

আরও পড়ুন

খাবার নিয়ে বন্যার্তদের পাশে নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ
সাংবাদিক নাসিমা সোমার ছেলে সৌমিক ফের করোনায় আক্রান্ত
সিলেটে বন্যায় মারা গেছে ২২ জন
কেউ ভাবেনি কখনো নিজের টাকায় পদ্মা সেতু হবে
৬ ঘণ্টা পর সিলেটে পরীক্ষামূলক আংশিক বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু
নিরাপদ আশ্রয়ের খোঁজে ছুটছে বানভাসি মানুষেরা
ময়মনসিংহে বজ্রপাতে পাঁচজনের মৃত্যু
কুমিল্লা সিটি নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে জয়ী হলেন যারা