২৩শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

চলন্ত ট্রেনে ছিনতাইকারীর থাবায় ছিটকে পড়া মা ও ছেলেকে উদ্ধারে শেখ হানিফ

বুধবার রাত পৌণে নয়টা, ভৈরব রেল স্টেশনে প্রবেশ করে চট্রগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী আন্তনগর মহানগর এক্সপ্রেস। যাত্রা বিরতীর জন্য পাঁচ মিনিট স্টেশনে দাঁড়ায় ট্রেনটি। এর মধ্যে যাত্রীও ওঠেন কয়েজন। তাদের মধ্যে ছিলেন এক নারী ও তার ছয় বছরের ছোট্ট সন্তান। পাঁচ মিনিট পর ট্রেনটি স্টেশন ছাড়ে। এ সময় ট্রেনের ভেতরে সন্তানকে এক হাতে ধরে নিজেদের সিট খুঁজছিলেন ওই নারী। অন্যহাতে ধরা ছিলেন ব্যাগ। ট্রেনটি প্ল্যাটফর্ম থেকে ২০০ গজ সামনে যেতেই সেই ব্যাগটি ধরে টান দেয় এক ছিনতাইকারী। এতে চলন্ত ট্রেন থেকে ছিটকে লাইনের পড়ে যান ওই নারী। ছেলে থেকে যায় ট্রেনের ভেতরে।

মায়ের এমন করুণ অবস্থা দেখে কান্না করছিল ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলার চরনারায়ন পুর গ্রামের বাসিন্দা মেরাজ। তার বাবার নাম মিলন মিয়া। নিজ ও বাবার নামের সঙ্গে বাড়ির ঠিকানা দিতে পারলেও মায়ের নামটি বলতে পারেনি মেরাজ।
ট্রেইনে সবাই হতবাক। কি আছে ছেলেটির ভাগ্যে বা তার মা আদৌ বেচে আছে কিনা তা নিয়ে সবার সংশয় কিন্তু কারো যেন কিছুই করার ছিল না। ট্রেন তখন অনেকদুর। সেই মুহুর্তে সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে মেরাজের মা কে উদ্ধারের চেষ্টা করতে থাকেন মানবিক যোদ্ধা শেখ হানিফ । যিনি গত একাদশ সংসদ নির্বাচনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর-৩ আসন থেকে সৈয়দ আল্লামা ইমাম হায়াত প্রতিষ্ঠিত বিশ্ব ইনসানিয়াত বিপ্লব সমর্থিত স্বতন্ত্র মানবিক প্রার্থী হিসেবে অংশগ্রহণ করেছিলেন। বর্তমানে এ মহান ব্যক্তি বিশ্ব সুন্নী আন্দোলন ও বিশ্ব ইনসানিয়াত বিপ্লব এর কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

খোজ নিয়ে জানা যায়, প্রথমেই তিনি ফোন করে ইমার্জেন্সি নাম্বার ৯৯৯ এ। এরপর তিনি মোবাইল ফোনে বিশ্ব সুন্নী আন্দোলন ও বিশ্ব ইনসানিয়াত বিপ্লব এর ভৈরব শাখার সাংঠনিক সম্পাদক শহীদুল ইসলাম সুমন, কবির মোল্লা ও ফাহাদ এর সাথে যোগাযোগ করলে তারা আহত মহিলাকে উদ্ধার করে ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন।

শহীদুল জানান, লাইন থেকে ওই নারী অন্তত দুই গজ দূরে পড়ে ছিলেন। তখন জ্ঞান ছিল না। কর্তব্যরত ডাক্তার উদ্ধার হওয়া ব্যক্তিকে দ্রুত ঢাকা মেডিকেলে নেওয়ার কথা জানালে তাৎক্ষনিকভাবে শহীদুল ইসলাম সুমন এর নেতৃত্বে কয়েকজন মিলে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়।

এদিকে আহত ব্যক্তির ছেলের কাছ থেকে বাড়ির ঠিকানা সংগ্রহ করে শেখ হানিফ তার পরিবারকে ঘটনাটি অবহিত করার দায়িত্ব দেন তাঁর সংগঠনের আখাউড়া উপজেলা শাখার সংগঠক ইউসুফ সরকারকে। ইউসুফের কাছে খবর শুনে পরিবারের লোকজন রাতেই ঢাকা আসেন এবং রোগীর খোজখবর নেন। আহত ব্যক্তির আত্মীয়স্বজন উদ্ধারে এগিয়ে আসার জন্য সকলকে কৃতজ্ঞতা জানান।

এ বিষয়ে মানবিক যোদ্ধা শেখ হানিফ এর সাথে যোগাযোগ করা হলে মানব বার্তাকে তিনি বলেন ,
মহানগর গোধুলী ট্রেইন ভৈরব ষ্টেশন থেকে ছাড়ার ৪/৫ মিনিট পর এক ছিনিতাইকারী চলন্ত ট্রেইন থেকে এই মানুষটির ব্যাগসহ টান দিলে মহিলাটি সহ চলন্ত ট্রেইন থেকে পরে যায় এবং ট্রেইনে রয়ে যায় তার ছেলে মেরাজ (৭)।
তখন আমি সাথে সাথে 999 এ কল দেই এবং তাদের বিষয়টি জানাই। পাশাপাশি আমার সংগঠনের ভৈরব উপজেলার সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল হক সুমনকে বিষয়টি জানালে তিনি ঘটনার ২০ মিনিটের মাথায় ঘটনাস্থলে পৌছায় এবং তাকে উদ্ধার করে হসপিটালে নিয়ে যায়।
হসপিটাল কতৃপক্ষ দ্রুত ঢাকা নিয়ে আসতে বললে সুমন এবং ফাহাদ আহত মহিলাকে নিয়ে ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি করান।
ছেলেটি ঢাকা বিমানবন্দর রেলওয়ে পুলিশের দায়িত্বে রয়েছে বলেও তিনি জানান।

তিনি আরো বলেন, আমরা মহিলার খবরটি তার বাড়িতে পৌছানোর জন্য বিশ্ব সুন্নী আন্দোলন ও বিশ্ব ইনসানিয়াত বিপ্লব আখাউড়া শাখার আহবায়ক কবির সরকার, শরীফ মৃধা ও ইউসুফ সরকার ভাইদের জানিয়েছি। তারা পরিবারের খোজখবর নিচ্ছেন।
এছাড়া আহত মহিলার চিকিৎসার জন্য যেকোনো সহযোগিতায় পাশে থাকার ব্যাপারেও তিনি আশ্বস্ত করে বলেন, মানুষ ও মানবতার কল্যাণে আমি ও আমার সংগঠন সাধ্য মত চেষ্টা করি এক্ষেত্রেও কোন ব্যতিক্রম হবেনা।

(Visited 1 times, 1 visits today)

আরও পড়ুন

ককটেল বিস্ফোরণ কাদের মির্জার সাজানো নাটকঃ কোম্পানীগঞ্জ আ’লীগ
এবার কাদের মির্জার ছোট ভাইয়ের নেতৃত্বে বাস ভাংচুর
রফিকুল ইসলাম মাদানীকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ
সেতুমন্ত্রীর পক্ষে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ বিতরণ
করোনার স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে মাইক হাতে ছুটছেন বন্দর ইউএনও
রুপসী বাংলা ব্লাড ডোনেট ক্লাবের ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং নির্নয় ক্যাম্প
কাদের মির্জার ‘নেতৃত্বে’ হোটেল ভাংচুর, আহত ৬
সেনা কল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর জন্ম দিবস ও জাতীয় শিশুদিবস উদযাপিত