১২ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২৮শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

জার্মানিতে ধর্মপ্রচারকের কারাদণ্ড

সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আইএসের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ থাকায় এক ইসলাম ধর্মপ্রচারককে সাড়ে দশ বছর কারাদণ্ডের নির্দেশ দিল উত্তর জার্মানির একটি আদালত।

গত এক দশকে জার্মানি থেকে বহু মানুষকে ইরাক ও সিরিয়ায় পাঠিয়েছিলেন তিনি, এমন অভিযোগও রয়েছে।

ডয়চে ভেলে জানায়, একই সঙ্গে অভিযুক্তের তিন সহযোগীকে দোষী সাব্যস্ত করেছে আদালত। তাদের অবশ্য কম সময় জেলে থাকতে হবে।

অভিযুক্ত ধর্মপ্রচারকের নাম আবু ওয়ালা। ৩৭ বছর বয়সী এই ব্যক্তি ২০০১ সালে ইরাক থেকে জার্মানিতে আসেন। শরণার্থী হিসেবে লোয়ার স্যাক্সনি অঞ্চলে থাকতে শুরু করেন। ওই অঞ্চলেই একটি মসজিদে ধর্মপ্রচারক হিসেবে যোগ দেন। সেখানেই কাজ করতেন তিনি।

২০১৫-১৬ সালে প্রথম মসজিদটি নজরে পড়ে পুলিশের। অভিযোগ মেলে, ওই মসজিদ থেকে উগ্র মতবাদ প্রচার করা হচ্ছে। তদন্ত করতে গিয়ে পুলিশ আবু ওয়ালার খোঁজ পায়।

জানা যায়, আবু ওয়ালার সংস্পর্শে এসে বেশ কিছু জার্মান ব্যক্তি আইএসে আকৃষ্ট হয়ে সিরিয়া ও ইরাকে চলে গেছেন।

জার্মানির দুই যমজ ভাইয়ের নিখোঁজ হওয়ার খবরও মেলে সে সময়। জানা যায়, তারাও আবু ওয়ালার সংস্পর্শে এসেছিলেন। তারপর ইরাকে আইএস সংগঠনে নাম লেখায়। ইরাকের একটি বিস্ফোরণে অভিযুক্ত ওই দুই ভাই।

আবু ওয়ালার নাম পেলেও তার বিষয়ে তথ্য পেতে পুলিশকে হিমশিম খেতে হয়। অত্যন্ত সন্তর্পণে এত দিন কাজ চালিয়েছেন আবু ওয়ালা। কোথাও নিজের ছবি ব্যবহার করেননি। বেশ কিছু ভিডিও বার্তা দিলেও সব সময় ক্যামেরার দিকে পিঠ রেখে কথা বলেছেন তিনি। ফলে তার বিরুদ্ধে তথ্য সংগ্রহ করতে অনেক দিন সময় লাগে পুলিশের। ২০১৭ সালে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এত দিন ধরে বিচার চলছিল। বুধবার জার্মান আদালত শাস্তি ঘোষণা করল।

বিচারে আবু ওয়ালা অবশ্য দোষ স্বীকার করেননি। সরকারি আইনজীবী তার সাড়ে ১১ বছরের শাস্তি চেয়েছিলেন। কিন্তু আবু ওয়ালার আইনজীবী নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেন। শেষপর্যন্ত বিচারক সাড়ে দশ বছরের শাস্তি ঘোষণা করেন।

অবশ্য আবু ওয়ালাকে আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু নিজের মুখে আদালতে কিছু বলতে চাননি। যা বলার তার আইনজীবীই বলেছেন।

(Visited 1 times, 1 visits today)

আরও পড়ুন

রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধে জেলেনস্কি যুক্তরাষ্ট্রের সতর্কবার্তা শোনেননি: বাইডেন
নিষিদ্ধ হলো শিয়াদের বির্তকিত ‘লেডি অভ হ্যাভেন’সিনেমা
কলকাতার বাংলাদেশ উপহাইকমিশনের সামনে গুলিতে নিহত ২
নবীকে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য, নুপুর শর্মার বিরুদ্ধে মামলা
চাদে স্বর্ণখনি শ্রমিকদের সংঘর্ষে নিহত ১০০
তিস্তা নদীর পানিবণ্টন চুক্তি না হওয়া লজ্জাজনক : পররাষ্ট্রমন্ত্রী
বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ছে মাঙ্কিপক্স
জুন থেকে ফের চালু হচ্ছে বাংলাদেশ-ভারত ট্রেন