৯ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২৫শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |

ময়মনসিংহের পৌর নির্বাচনে সাংবাদিক নির্যাতনে মামলা

ময়মনসিংহের গৌরীপুর গত ৩০ জানুয়ারির পৌরসভা নির্বাচনে দুই সাংবাদিকের ওপর হামলা ও মারধরের ঘটনার জেরে মামলা দায়ের হয়েছে। মামলায় অজ্ঞাত ১০/১৫ জনকে আসামি করা হয়।

রবিবার (৭ ফেব্রুয়ারি) রাতে হামলার শিকার দুজনের একজন মাসুদ রানা বাদী হয়ে গৌরীপুর থানায় মালাটি দায়ের করেছেন।

গৌরীপুর থানার ওসি (তদন্ত) মোহাম্মদ কামাল হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মামলার এজহারের বরাত দিয়ে ওসি (তদন্ত) মোহাম্মদ কামাল হোসেন জানান, গত ৩০ জানুয়ারি ময়মনসিংহ জেলার গৌরীপুর পৌরসভা নির্বাচন দিন দুপুর পৌনে ১ টার দিকে পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ড শেখ লেবু সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে পেশাগত দায়িত্ব পালন করছিলেন মাসুদ রানা। এ সময় তার সাথে ছিলেন গাজী টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি কাজী মো. মোস্তফা, ৭১ টেলিভিশনের ক্যামেরাম্যান নুরুজ্জামান, আরটিভির জেলা প্রতিনিধি বিপ্লব বসাক, একুশে টেলিভিশনের বিভাগীয় প্রতিনিধি আতাউর রহমান জুয়েল, মানবজমিন পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার মতিউল আলম, দৈনিক করোতোয়া পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি নজিব আশরাফ, মানবজমিন পত্রিকার ফটো সাংবাদিক ফখরুল আকন্দ, দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার আঞ্চলিক প্রতিনিধি সুপ্রিয় ধর বাচ্চু, দৈনিক জনতা পত্রিকার গৌরীপুর উপজেলা প্রতিনিধি শেখ মো. বিপ্লব, গৌরীপুর উপজেলা প্রতিনিধিসহ অনেকেই পেশাগত দায়িত্ব পালেন ঘটনাস্থলে যান।

এ সময় কেন্দ্র সংলগ্ন মাঠে মেয়র প্রার্থী সৈয়দ রফিকুল ইসলাম ও শফিকুল ইসলাম হবির সমর্থকদের মধ্যে ভীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করে অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার এক পর্যায়ে সংঘর্ষ বাধে। তখন সেই সংঘর্ষের ভিডিও ধারণ করতে গেলে অজ্ঞাতনামা ১০/১৫ জন সংঘর্ষকারীরা বেআইনি জনতাবদ্ধে হত্যার উদ্দেশ্যে বাঁশের লাঠি, রাম দা দিয়ে মাসুদ রানা ও একাত্তর টিভির ক্যামেরা পার্সন নুরুজ্জামান এর উপর হামলা চালিয়ে বেধড়ক মারধর করে মাসুদ রানার পা, পিট ও শরীরের বিভিন্ন জায়গায় এবং নুরুজ্জামান এর শরীরেও বিভিন্ন স্থানে রক্তাক্ত জখম করে।

এ সময় মাসুদ রানার হাতে থাকা ক্যামেরা ভাঙচুর করে আনুমানিক ৩,৫০,০০০/- (তিন লাখ পঞ্চাশ হাজার) টাকার ক্ষতি করে। তাদের ডাক চিৎকারে কেন্দ্রে থাকা অনান্য সাংবাদিকরা তাদের উদ্ধার করে আহত অবস্থায় গৌরীপুর উপজেলা হাসপাতালে নিয়া যায়। গৌরীপুর হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তার তাদের চিকিৎসা প্রদান করেন। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য মাসুদ রানাকে ময়মনসিংহ মেডেকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। হামলার পর একাত্তর, যমুনা ও চ্যানেল ২৪ সহ বিভিন্ন টেলিভিশন লাইভ সম্প্রচার করেছে। পরের দিন, সমকাল, যুগান্তর, বাংলাদেশ প্রতিদিন, নয়াদিগন্ত ও দৈনিক মানব জমিন পত্রিকায় প্রিন্ট এবং অনলাইনে সবিত্র প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

এছাড়া দেশের প্রথম সারির অনলাইনপোর্টালে সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। সে সব বাদীর সংরক্ষিত আছে। হামলার পর থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যামসহ বিভিন্ন অনলাইন নিউজ পোর্টালে হামলাকারীদের ছবিসহ সংবাদ প্রতিবেদন প্রচার হয়েছে। যা হামলাকারীদের সনাক্ত, তাদের অপরাধ ও ঘটনা প্রমান করবে বলেও দাবি করেন বাদী মাসুদ রানা।

এ বিষয়ে গৌরীপুর থানার ওসি (তদন্ত) মোহাম্মদ কামাল হোসেন বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

(Visited 1 times, 1 visits today)

আরও পড়ুন

মুসলিম মিল্লাতের মহান জাতীয় শহীদ দিবস উপলক্ষে ওয়ার্ল্ড সুন্নী মুভমেন্টের সমাবেশ
মহররম ঈমানী শোক ও ঈমানী শপথের মাস, আনন্দ উদযাপনের নয় – আল্লামা ইমাম হায়াত
এমপির বিরুদ্ধে উপজেলা চেয়ারম্যানকে কিল-ঘুষির অভিযোগ
বঙ্গবন্ধুর সমাধীস্থলে মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের শ্রদ্ধাঞ্জলী
অসহায় মানুষের মাঝে মাংস বিতরণ করল ‘জীবন আলো’
নোয়াখালীতে প্রবাসীকে মারধর ও লুটপাটের অভিযোগ
করোনায় সারাদেশে আরও ৭ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৯৯৮
বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হওয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা